Breaking News
Home / আন্তর্জাতিক / আইনসংগত বিষয় নিয়ে আলোচনায় রাজি কাতার

আইনসংগত বিষয় নিয়ে আলোচনায় রাজি কাতার

কমলগঞ্জ বার্তা ডেস্ক,রিপোর্টঃ
আঞ্চলিক সংকট কাটিয়ে উঠতে ‘আইনসংগত বিষয়গুলো’ নিয়ে আরব দেশগুলোর সঙ্গে আলোচনা করতে নিজেদের প্রস্তুতির কথা জানিয়েছে কাতার। তবে আরব দেশগুলোর পক্ষ থেকে গত সপ্তাহে দেওয়া একটি তালিকার উল্লেখ করে দেশটি বলেছে, ওই তালিকায় উল্লেখিত দাবিগুলো যৌক্তিক নয় বলে সেগুলো মেটানো সম্ভব নয়। সন্ত্রাসবাদ ও কট্টরপন্থায় মদদ দেওয়ার অভিযোগ তুলে সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত (ইউএই), বাহরাইন ও মিসর ৫ জুন কাতারের সঙ্গে কূটনৈতিক ও বাণিজ্যিক সম্পর্ক ছিন্ন করে। তাদের অভিযোগ, আরব দেশগুলোর আঞ্চলিক শত্রু ইরানের সঙ্গে হাত মিলিয়ে কাতার কট্টরপন্থায় মদদ দিচ্ছে। কাতারের সরকার বরাবরই এসব অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে। এই দেশগুলো কাতারের সরকার-নিয়ন্ত্রিত আল-জাজিরা টেলিভিশন বন্ধ করা এবং ইরানের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা কমিয়ে দেওয়াসহ ১৩ দফা দাবি পাঠিয়েছে দোহার কাছে। তাদের দাবিগুলো মেটানোর শেষ দিন বেঁধে দেওয়া হয়েছে রোববার পর্যন্ত।
দাবিগুলো মেটানোর শেষ দিন ঘনিয়ে আসার প্রেক্ষাপটে কাতারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ বিন আবদুলরহমান গতকাল বৃহস্পতিবার দোহায় বলেন, দোহা চায় এই সংকট কাটিয়ে উঠতে। আইনসংগত যেসব বিষয় আছে, সেগুলো নিয়ে আলোচনা করতে চায়। তবে আরব দেশগুলোর পাঠানো দাবিগুলোর কয়েকটি অযৌক্তিক। তাই সেগুলো মেটানো যাবে না। এক বিবৃতিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, তথাকথিত ইসলামিক স্টেট, আল-কায়েদা ও লেবাননের শিয়া মিলিশিয়াদের গোষ্ঠী হিজবুল্লাহর সঙ্গে তাঁদের কোনো সম্পর্ক নেই। এ ছাড়া তাঁরা ইরানের রেভল্যুশনারি গার্ডের কোনো সদস্যকে বহিষ্কার করতে পারে না। কারণ, সেসব সদস্যের মধ্যে কেউই কাতারে নেই। রাশিয়ায় সংযুক্ত আরব আমিরাতের রাষ্ট্রদূত বলেন, আরব দেশগুলোর পক্ষ থেকে পাঠানো দাবিগুলো না মানলে কাতারের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হতে পারে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Check Also

সৌদি আরব প্রবাসী কমলগঞ্জের রুবিনা বেগমের সন্ধান চায় তার পরিবার

বিশেষ প্রতিনিধিঃ মেয়েটির নাম রুবিনা বেগম। তার বাড়ী মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের ইসলামপুর ইউনিয়নের রাজকান্দি গ্রামে। হতদরিদ্র মা ...