Breaking News
Home / কমলগঞ্জ / কমলগঞ্জে কৃষি বিভাগের কতিপয় মাঠকর্মীদের বিরুদ্ধে স্বজন প্রীতির অভিযোগ প্রকৃত কৃষকদের মধ্যে কৃষি ভতুর্কি ও সার-বীজ প্রদানের দাবি

কমলগঞ্জে কৃষি বিভাগের কতিপয় মাঠকর্মীদের বিরুদ্ধে স্বজন প্রীতির অভিযোগ প্রকৃত কৃষকদের মধ্যে কৃষি ভতুর্কি ও সার-বীজ প্রদানের দাবি

ষ্টাফ রিপোর্ট #
মৌলভীবাজারের কৃষি অধ্যুষিত কমলগঞ্জ উপজেলায় প্রকৃত কৃষকদের মধ্যে কৃষি ভতূর্কি, কৃষি উপকরণ, সার-বীজ, কীটনাশকসহ সরকারি সকল সুযোগ সুবিধা প্রাপ্তির দাবি জানানো হয়েছে। একই সাথে উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের কতিপয় কৃষি উপসহকারী কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে স্বজন প্রীতির অভিযোগ তোলেছেন মাঠ পর্যায়ের কৃষকরা। বৃহস্পতিবার বিকাল ৪ টায় কমলগঞ্জ সদর ইউনিয়নের জামিরকোনা এলাকায় জনাকীর্ন এক সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে কৃষকরা এসব অভিযোগ করেন। তবে কৃষি বিভাগের মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তারা এসব অভিযোগ অস্বীকার করে উদ্দেশ্য প্রণোদিত বলে দাবি করেছেন।
কৃষকদের অভিযোগে জানা যায়, সদর ইউনিয়নের তিলকপুর, নগর ও জামিরকোনা এলাকার কৃষকরা সকল মৌসুমে ধানসহ টমেটো, আলু, ফুলকপি, বাঁধাকপি, বেগুন ও অন্যান্য শাক-সবজি চাষাবাদ করেন। তাদের উৎপাদিত ফসলাদি স্থানীয় বাজারে চাহিদা পূরণ করে মৌলভীবাজারসহ সারাদেশে রপ্তানি করা হয়। গরিব, দরিদ্র ও নি¤œআয়ের কৃষকদের শ্রম-ঘামে ফসল উৎপাদিত হলেও উপজেলা কৃষি বিভাগের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা কনেক সিংহ, প্রতাপ সিংহ, বাবাতন সিংহ, অষ্টিনি সিংহ, পদ্মা সিংহ, নবকুমার সিংহ, কৃষ্ণ কুমার সিংহ স্বজনপ্রীতির মাধ্যমে তাদের নিজ সম্প্রদায়ের মধ্যে কৃষি ভতূর্কিসহ কৃষি বিভাগের সরকারি সকল সুযোগ সুবিধা প্রদান করছেন। ফলে প্রকৃত কৃষকরা সরকারের সকল ধরনের সুযোগ সুবিধা বঞ্চিত হয়ে কৃষি উৎপাদনের নিরুৎসাহিত হচ্ছেন। কৃষকরা অভিযোগ করে বলেন, গত ৫ জানুয়ারী কৃষি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির নেতৃবৃন্দ তিলকপুর আগমনকালে কতিপয় উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তারা এলাকার কৃষকদের প্রকৃত চিত্র তোলে ধরতে তাদেরকে কথা বলার সুযোগ থেকে বঞ্চিত করেন। তাছাড়া কৃষকদের প্রকৃত চিত্র ও সমস্যার কথা সংসদীয় কমিটির সম্মুখে তোলে ধরা হয়নি। এসব বিষয়ে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর মৌলভীবাজার এর উপ-পরিচালক বরাবরে লিখিত অভিযোগ প্রদান করা হয়েছে বলে কৃষকরা দাবি করেন। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন কৃষক মো. আলিক মিয়া। এ সময়ে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কৃষক নূরুল হুদা, হান্নান মিয়া, ইসহাক মিয়া, রশিদ মিয়া, মাসুক মিয়া প্রমুখ।
তবে অভিযোগ বিষয়ে উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা কৃষ্ণ কুমার সিংহ বলেন, এটি আমার এলাকা নয়। এই অভিযোগ সঠিক নয়। উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা প্রতাপ সিংহ বলেন, কৃষি ভতূর্কি ও সার সহ অন্যান্য সুবিধাদি বিষয়ে ইউনিয়ন পর্যায়ে কমিটি রয়েছে। জনপ্রতিনিধিদের তালিকায় অধিকাংশদেরই নাম আসে। ইউনিয়ন পর্যায়ে এই কমিটির মাধ্যমে সেখানে একসাথে সবাইকে সব ধরনের সুবিধা প্রদান করা সম্ভব হয় না।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. শামসুদ্দীন আহমদ বলেন, আসলে এই ধরনের তালিকা মূলত জনপ্রতিনিধরাই করে থাকেন। জনপ্রতিনিধিদের তালিকা মোতাবেক হয়তো কিছু লোক বাদ পড়তে পারেন। তারপরও কৃষকদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Check Also

কমলগঞ্জে গাছ চাপায় বৃদ্ধার মৃত্যু-কমলগঞ্জ বার্তা

স্টাফ রিপোর্টার : মৌলভীবাজার জেলার কমলগঞ্জ উপজেলার  সদর ইউনিয়নের কালাছড়া এলাকায় গাছ চাপায় এক বৃদ্ধার ...