Breaking News
Home / আলোচিত খবর / করোনাভাইরাস মোকাবেলায় কমলগঞ্জের কর্মহীনদের পাশে রহিমপুর ইউপি চেয়ারম্যান

করোনাভাইরাস মোকাবেলায় কমলগঞ্জের কর্মহীনদের পাশে রহিমপুর ইউপি চেয়ারম্যান

আমিনুল ইসলাম হিমেল॥

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে গিয়ে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে কর্মহীন হয়ে পরা অসহায় ও নিম্নবিত্ত পরিবারের পাশে দাঁড়িয়েছেন উপজেলার ১নং রহিমপুর ইউপি চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা ইফতেখার আহমেদ বদরুল।

তিনি কখনও নিজ অর্থায়নে, কখনওবা সরকারি অর্থায়নে, আবার কখনও কোন দানশীল ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান বা বেসরকারি সংস্থার অর্থায়নে নগদ টাকা, চাল, বা খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করছেন।এ ব্যাপারে রহিমপুর ইউনিয়নের তিন বারের নির্বাচিত চেয়ারম্যান ইফতেখার আহমেদ বদরুল জানান, ইতিমধ্যে সরকারী ও বেসরকারি সংস্থা, ব্যক্তি ছাড়া তাঁর নিজ তহবিল থেকে তিন লক্ষাধিক টাকার খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেছেন। এ পর্যন্ত সবমিলিয়ে রহিমপুর ইউনিয়নের চা বাগানসহ সহস্রাধিক পরিবারের মাঝে তিনি চাল, খাদ্যসামগ্রী ও নগদ টাকা বিতরণ করেছেন। খাদ্য সহায়তা চলমান রয়েছে। ব্যক্তি উদ্যোগে কর্মহীন নিম্ন আয়ের মানুষের পাশে থাকার জন্য দিনরাত বিরামহীনভাবে ছুটে চলেছেন। তিনি আরও জানান, মানবিক কারণে এসব খাদ্য সহায়তা কর্মহীনদের বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দিচ্ছেন বলে জানান ইউপি চেয়ারম্যান ইফতেখার আহমেদ বদরুল। বর্তমান পরিস্থিতিতে যানবাহনসহ সকল দোকানপাট বন্ধ থাকায় গৃহবন্দি হয়ে পড়েছে ইউনিয়নের কয়েক সহস্রাধিক কর্মজীবী ও নিম্ন আয়ের মানুষ। যার কারণে সবাই ক্ষুধার জ্বালায় এক মানবেতর জীবনযাপন করছে। সেই অসহায় ও কর্মহীন মানুষের কষ্টের কথা চিন্তা করে মানবিক উদ্যোগ গ্রহণ করেন চেয়ারম্যান ইফতেখার আহমেদ বদরুল। তাঁর ডাকে সাড়া দিয়ে ইউনিয়নের বিত্তবান, প্রবাসী ও তাঁর আত্মীয়-স্বজন এবং শুভাকাঙ্খীদের কাছ থেকেও খাদ্য সহায়তার ব্যবস্থা করেন। এই খাদ্য সহায়তা ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামের কর্মহীন, দিনমজুর, রিকশাচালক, ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী ও দুঃস্থ মানুষের বাড়িতে পৌঁছে দিয়েছেন। খাদ্য সহায়তার মধ্যে রয়েছে চাল, আলু, মসুরি ডাল/চানার ডাল, পেঁয়াজ,  তেল ও সাবান। পাশাপাশি সরকারিভাবে দুঃস্থ ও কর্মহীন পরিবারকে ত্রাণ সহায়তা প্রদান চলমান রয়েছে।
রহিমপুর ইউপি চেয়ারম্যানের এমন উদ্যোগকে ইউনিয়নের সর্বস্তরের মানুষ প্রশংসার চোখে দেখছেন। পাশাপাশি করোনা প্রতিরোধে সরকারের প্রতিটি নির্দেশনা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে মানুষদের সচেতন করে তুলছেন। করোনার সংক্রমণ রোধে ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানে হাত ধৌত করারও ব্যবস্থা করেছেন। আলাপকালে রহিমপুর ইউনিয়নের বাসিন্দা সুলতান মিয়া, পেয়ারা বেগম, আব্দুল রহিম, সুলেমান মিয়া, বিকাশ পাল বলেন, যেখানে বিপদ, সেখানেই আমাদের চেয়ারম্যান সাহেবকে দেখতে পাই। আমরা তাঁর মতো একজন চেয়ারম্যান পেয়ে রহিমপুরবাসী ধন্য।
আলাপকালে রহিমপুর ইউপি চেয়ারম্যান আওয়ামীলীগ নেতা ইফতেখার আহমেদ বদরুল জানান, ‘বাংলাদেশসহ সারাবিশ্বে করোনা ভাইরাস মহামারি আকার ধারণ করেছে। এ থেকে রেহাই পেতে জনসচেতনতার কোন বিকল্প নেই। তাছাড়া সরকারি নির্দেশনায় সবকিছু বন্ধ থাকায় মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়েছে। তাই তাদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য সরকারের পাশাপাশি আমার আত্মীয়-স্বজনসহ এলাকার প্রবাসী ও বিত্তবানদের সহযোগিতায় আমার এ ক্ষুদ্র প্রচেষ্টা মাত্র। ইতিমধ্যে কর্মহীন অসহায় সহস্রাধিক মানুষের মাঝে মানবিক কারণে খাদ্য সহায়তা প্রদান করা হয়েছে।’ এটি চলমান রয়েছে। এ ধরণের খাদ্য সহায়তা প্রদান পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে। তিনি আরও বলেন, এই মহাদুর্যোগের সময় প্রবাসীসহ সমাজের বিত্তশালী ব্যক্তি লোকদের এগিয়ে আসা জরুরী।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Check Also

মৌলভীবাজারে চার ছাগল চোরকে গণধোলাই, পুলিশে সোপর্দ-কমলগঞ্জ বার্তা

পায়েল আহমেদ, মৌলভীবাজার থেকে ॥ মৌলভীবাজার সদর উপজেলার ৪নং আপার কাগাবলা ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ড পদুনাপুর ...