Breaking News
Home / জাতীয় / করোনা রোগী দেখতে মানুষের ঢল – কমলগঞ্জ বার্তা

করোনা রোগী দেখতে মানুষের ঢল – কমলগঞ্জ বার্তা

কমলগঞ্জ বার্তা ডেস্ক, রিপোর্ট ॥  মেহেন্দিগঞ্জে করোনা রোগী দেখতে মানুষের ঢল মেহেন্দিগঞ্জের করোনা রোগী দেখতে মানুষের ঢল। ছবি:ইত্তেফাক    বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলায় করোনা রোগীকে হেলিকপ্টারযোগে রাজধানীতে নেয়া দেখতে শত শত মানুষের ঢল নামে। বুধবার (৩ জন) দুপুর ১টার দিকে উপজেলার উলানিয়া ইউনিয়নের আশা গ্রামের ৬নং ওয়ার্ডের মুজাফফর খান ডিগ্রি কলেজ মাঠে উৎসুক জনতা স্বাস্থ্য বিধি উপেক্ষা করে জড়ো হয়।  উলানিয়া ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য মোঃ. জসিম উদ্দিন সাংবাদিকদের জানান, আশা গ্রামের মৃত মোজাম্মেল হক এর ছেলে তৌফিক হোসেন এছাহাক (৪২) করোনায় আক্রান্ত হয়ে ৮/১০ দিন যাবত নিজ বাড়িতে অবস্থান করছেন। তিনি জানান তৌফিক ঢাকায় থাকতেন, কবে সে বাড়িতে এসেছে তা এলাকার কেউ জানেন না। দুপুরে হেলিকপ্টার আসায় এলাকাবাসী জানতে পারে তৌফিক করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন তাকে চিকিৎসার জন্য রাজধানী ঢাকায় নেয়া হচ্ছে।  তিনি জানান, হেলিকপ্টার দেখতে বৃদ্ধ ও শিশু সহ সেখানে ব্যাপক জনসমাগম হয়। তারা পূর্ব থেকে কিছু না জানায় এবং প্রশাসনের কোনো লোকজন না থাকায় স্বাস্থ্য বিধি উপেক্ষা করা হয়।   মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) পীযুষ চন্দ্র দে ইত্তেফাককে জানান, তিনি এ বিষয়ে কিছুই জানতেন না। ঐ ইউনিয়নের সচিব ও মেহেন্দিগঞ্জ থানার ওসি’র মাধ্যমে পরে জানতে পেরেছেন। এ বিষয়ে উলানিয়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান লিটন জানান, তিনি কিছুই জানতেন না। আকস্মিক একটি হেলিকপ্টার অবতরণ করে এবং পরবর্তীতে ঐ রোগী নিয়ে যায়। তিনি জানতে পেরেছেন তৌফিক হোসেন’র নিকটাত্মীয় সরকারী চাকুরী করেন তার মাধ্যমে তাকে নেয়া হয় এবং টাইফয়েট জনিত রোগে সে আক্রান্ত। এদিকে হেলিকপ্টারযোগে করোনা রোগীকে ঢাকায় নিয়ে যাওয়া এবং সেখানে শত শত মানুষ জড়ো হওয়ার বিষয়ে এলাকায় আতংক বিরাজ করছে। স্থানীয় সচেতন মহল জানান করোনা আতংকের মধ্যে এ ধরনের কর্মকাণ্ডে তারা আতংকিত হয়ে পড়েছেন। কেননা সেখানে জনসমাগমকে কেন্দ্র করে করোনার বিস্তার ঘটতে পারে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Check Also

পূর্ব শত্রুতার জেরে অপহরণ ও নির্যাতন, আদালতে মামলা দেয়ার পর প্রতিপক্ষের মামলা! সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ

কমলগঞ্জ বার্তা ডেস্ক, রিপোর্ট ॥ পূর্ব শত্রুতার জেরে স্কুল পড়ুয়া ছেলে আনোয়ার হোসেন (১৮) কে ...