Breaking News
Home / আন্তর্জাতিক / কাতারের অবস্থান যৌক্তিক: টিলারসন কাতারের সঙ্গে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর চুক্তি

কাতারের অবস্থান যৌক্তিক: টিলারসন কাতারের সঙ্গে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর চুক্তি

কমলগঞ্জ বার্তা ডেস্ক,রিপোর্টঃ
যুক্তরাষ্ট্র ও কাতার গতকাল মঙ্গলবার সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলায় একটি চুক্তি স্বাক্ষরের কথা ঘোষণা করেছে। সন্ত্রাসবাদে মদদ দেওয়ার অভিযোগে কাতারের ওপর সৌদি আরবসহ কয়েকটি প্রতিবেশী দেশের অবরোধের মধ্যে এ চুক্তি করল ওয়াশিংটন ও দোহা। চুক্তির ঘোষণা দেওয়ার পর মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন সংকট নিরসনে কাতারের অবস্থানকে ‘যৌক্তিক’ আখ্যা দিয়ে বলেছেন, তিনি সমাধানের ব্যাপারে আশাবাদী।
এদিকে আঞ্চলিক বিষয় নিয়ে কাতার ও সৌদি আরবের মধ্যে পুরোনো একটি চুক্তির বিষয়বস্তু ফাঁস হয়ে যাওয়ায় কাতারের সঙ্গে প্রতিবেশীদের তিক্ততা আরও বৃদ্ধির আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। প্রতিবেশীরা বলছে, কাতার ওই চুক্তিতে প্রতিবেশীদের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে নাক না গলানোর অঙ্গীকার করলেও তা ভঙ্গ করেছে। কাতার সংকট নিরসনে আন্তর্জাতিক উদ্যোগের অংশ হিসেবে গত সোমবার কুয়েত সফরে যান যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন। সেখান থেকে গতকাল কাতারে যান। আজ বুধবার যাবেন সৌদি আরবে। কাতারের রাজধানী দোহায় গতকাল এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে টিলারসন ও কাতারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ বিন আবদুলরহমান আল-থানি সন্ত্রাস দমন নিয়ে দুই দেশের মধ্যে নতুন চুক্তির ঘোষণা দেন। টিলারসন বলেন, ‘দুনিয়া থেকে সন্ত্রাস নির্মূলের লক্ষ্যে গত মে মাসে রিয়াদে যে শীর্ষ বৈঠক হয়, তার সিদ্ধান্তের আলোকেই এ চুক্তি হয়েছে।’ আর কাতারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সন্ত্রাসে অর্থায়ন বন্ধে তার দেশই এ অঞ্চলে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় চুক্তি করা প্রথম দেশ।
সংবাদ সম্মেলনে টিলারসন আরও বলেন, ‘আমি মনে করি, প্রতিবেশীদের সঙ্গে চলমান সংকটের বিষয়ে কাতারের অবস্থান স্পষ্ট এবং তা যৌক্তিক।’চাপ আরও বাড়ল
রয়টার্স জানায়, কাতার ও সৌদি আরবের মধ্যে ২০১৩ সালে সম্পাদিত গোপন একটি চুক্তির বিষয়বস্তু সোমবার প্রকাশ করেছে মার্কিন সম্প্রচারমাধ্যম সিএনএন। ওই চুক্তিতে কাতার উপসাগরীয় প্রতিবেশী দেশগুলোর ব্যাপারে হস্তক্ষেপ না করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। এই চুক্তি সই হওয়ার বিষয়টি এত দিন জানা থাকলেও এর বিষয়বস্তু আগে কখনো প্রকাশ হয়নি। চুক্তির বিষয় প্রকাশ হওয়ার পর যৌথ বিবৃতিতে সৌদি আরব, বাহরাইন, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও মিসর বলেছে, ওই চুক্তির তথ্য ফাঁসের পর এটা সন্দেহাতীতভাবে নিশ্চিত, কাতার তার প্রতিশ্রুতি রক্ষা করতে ব্যর্থ হয়েছে। দেশটি যা করেছে, তা তার প্রতিশ্রুতির পূর্ণ লঙ্ঘন।
এর জবাবে সৌদি আরব ও ইউএইর বিরুদ্ধে রিয়াদ চুক্তির ‘চেতনা নষ্ট’ করার অভিযোগ তুলে কাতার বলেছে, দেশগুলো কাতারের সার্বভৌমত্বের ওপর ‘অন্যায় ও নজিরবিহীন’ আক্রমণ চালাচ্ছে। সন্ত্রাসবাদে মদদের অভিযোগ তুলে গত ৫ জুন কাতারের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করে ওই চার আরব দেশসহ মোট সাতটি দেশ। এরপর দেশটির বিরুদ্ধে স্থল, নৌ ও আকাশপথে অবরোধ আরোপ করা হয়।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Check Also

সৌদি আরব প্রবাসী কমলগঞ্জের রুবিনা বেগমের সন্ধান চায় তার পরিবার

বিশেষ প্রতিনিধিঃ মেয়েটির নাম রুবিনা বেগম। তার বাড়ী মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের ইসলামপুর ইউনিয়নের রাজকান্দি গ্রামে। হতদরিদ্র মা ...