Breaking News
Home / আন্তর্জাতিক / কাতারের বাংলাদেশ স্কুলে ১৪টি জিপিএ-৫ সহ পাশের হার ৯৪.৪

কাতারের বাংলাদেশ স্কুলে ১৪টি জিপিএ-৫ সহ পাশের হার ৯৪.৪

কমলগঞ্জ বার্তা ডেস্ক, রিপোর্টঃ
সদ্য প্রকাশিত এ বছরের এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফলে কাতারের বাংলাদেশ এমএইচএম স্কুল অ্যান্ড কলেজ ঈর্ষণীয় ফলাফল করেছে। এটিকে সাম্প্রতিককালে সবচেয়ে সেরা ফলাফল হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন স্কুল কর্তৃপক্ষ। ২৩ জুলাই এই ফলাফল প্রকাশিত হয়। এ বছর বাংলাদেশ এমএইচম স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে অংশ নেওয়া ৭২ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৬৮ জনই পাশ করেছে। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৪ শিক্ষার্থী। অকৃতকার্য হয়েছেন ৪ জন। সবমিলিয়ে এ বছর এই প্রতিষ্ঠানের পাশের হার ৯৪.৪ ভাগ। স্কুলসূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে। বাংলাদেশে এ বছর মাদরাসা, কারিগরিসহ ১০টি শিক্ষা বোর্ডের অধীন উচ্চমাধ্যমিক সার্টিফিকেট (এইচএসসি) ও সমমানের পরীক্ষার পাসের হার ও জিপিএ-৫ দুটোই কমেছে। এবার ১০ বোর্ডের পাসের গড় হার ৬৮.৯১ শতাংশ। গতবার এ হার ছিল ৭৪.৭০ শতাংশ। এবারে জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৩৭ হাজার ৭২৬ জন।অধ্যক্ষ জসিমউদ্দীন বলেন, আমরা খুব আনন্দিত। বিগত কয়েক বছরের মধ্যে এটি সবচেয়ে ভালো ফলাফল। বাংলাদেশ এ বছর পাশের হার শতকরা ৬৮.৯১ ভাগ হলেও আমাদের স্কুলে এই হার ৯৪ শতাংশের বেশি। আমি কৃতী শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানাই।’

জিপিএ-৫ পাওয়া পরীক্ষার্থীদের মধ্যে ১০ জন ছাত্রী এবং ৪ জন ছাত্র রয়েছেন। এঁরা সবাই বিজ্ঞান বিভাগ থেকে পরীক্ষায় অংশ নেন। তবে বাণিজ্য বিভাগের পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ২২ জন হলেও তাদের কেউ জিপিএ-৫ পাননি।

স্কুল সূত্রে জানা গেছে, অকৃতকার্য ৪ শিক্ষার্থীর মধ্যে একজন বিজ্ঞানবিভাগের শিক্ষার্থী। বাকি তিনজন বাণিজ্য বিভাগের। এর মধ্যে একজন অনিয়মিত পরীক্ষার্থী এবং বাকি দুজন নিয়মিত পরীক্ষার্থী হিসেবে এ বছর পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন।

বাংলাদেশ এমএইচএম স্কুল অ্যান্ড কলেজের চেয়ারম্যান কাতারে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আসুদ আহমদ এ ফলাফলে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। তিনি স্কুল কর্তৃপক্ষ ও কৃতী শিক্ষার্থী এবং তাদের অভিভাবকদের প্রতি অভিনন্দন জানিয়ে আশা প্রকাশ করেন, ভবিষ্যতেও এই প্রতিষ্ঠান এমন সাফল্যের ধারা অব্যাহত রাখবে।

কাতারে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশিদের জন্য ১৯৭৯ সালে স্থাপিত বাংলাদেশ এমএইচএম স্কুল অ্যান্ড কলেজ একমাত্র বাংলাদেশি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। হাজারের বেশি প্রবাসী শিক্ষার্থী বর্তমানে এই প্রতিষ্ঠানের অধ্যয়ন করছে। আবু হামর এলাকায় অবস্থিত এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রবাসে বাংলা ভাষা, সাহিত্য ও সংস্কৃতি চর্চা এবং প্রসারে কয়েক দশক ধরে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে চলেছে। কাতারে নিযুক্ত বাংলাদেশের প্রথম রাষ্ট্রদূত মরহুম মাশহুরুল হকের নামে এই স্কুলের নামকরণ করা হয়।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Check Also

সৌদি আরব প্রবাসী কমলগঞ্জের রুবিনা বেগমের সন্ধান চায় তার পরিবার

বিশেষ প্রতিনিধিঃ মেয়েটির নাম রুবিনা বেগম। তার বাড়ী মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের ইসলামপুর ইউনিয়নের রাজকান্দি গ্রামে। হতদরিদ্র মা ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *