Breaking News
Home / কমলগঞ্জ / চা বাগানের প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর দুর্ভোগ লাঘবে এগিয়ে এসেছে মণিপুরী মানবকল্যাণ সংস্থা

চা বাগানের প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর দুর্ভোগ লাঘবে এগিয়ে এসেছে মণিপুরী মানবকল্যাণ সংস্থা

রাজু দত্ত, নিজস্ব প্রতিবেদক।।

চায়ের দু`টি পাতা একটি কুঁড়ির ভাঁজে চা বাগানের শ্রমিকদের সাপ্তাহিক সামান্য মজুরী দিয়ে কষ্টের জীবন। হাড় কাঁপানো শীতে জোঁক ছোবলে জর্জরিত চা শ্রমিকদের সারাটি জীবনই কেটে যায় রোগে শোকে। জীর্ণ কুটিরের ততোধিক জীর্ণ ছাউনি ভেঙ্গে শীতে কুটিরের বেড়ার হাজারো ছিদ্রের ভেতর দিয়ে বয় পাহাড়ি থেকে আসা কনকনে উত্তুরে হিমেল হাওয়া। বাগানের হতদরিদ্র চা জনগোষ্ঠীর  শ্রমিকদের সাপ্তাহিক সামান্য মজুরী দিয়ে পেট চলবে নাকি গরম কাপড় জোটবে তা কেবলই সুস্থ মস্তিষ্কের বিবেকে প্রশ্ন ওঠে বারংবার। বিবেক ও মানবতার দুয়ার খুলে দিতে “উষ্ণতার ছোঁয়ায় মানবতার জয়” স্লোগানে প্রতি বছরই মতো শীতে কষ্ট পোহানো এসব প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর দুর্ভোগ লাঘবের জন্য এগিয়ে এসেছে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন মণিপুরী মানব কল্যাণ সংস্থা। তাদের সেবামূলক প্রকল্পের মাধ্যমে “শীতার্তদের পাশে সৌহার্দ্য (সিজন-২)” উদ্যোগ নিয়ে শীতার্তদের পাশে উষ্ণতার উপহার হিসেবে কমলগঞ্জ উপজেলার অন্যতম হামহাম জলপ্রপাত রোডের কুরমা সীমান্ত ফাঁরির চাম্পারায় চা বাগান ও কলাবন বাগানে চা শ্রমিকদের মাঝে  শুক্রবার দুপুরে শীতবস্ত্র বিতরণ করেছে। সীমান্তবর্তী হওয়ায় তেমন কোন সুবিধা কপালে জুটে না এই বাগানের দরিদ্র চা জনগোষ্ঠী মানুষের এর ফাঁকে সৌহার্দ্যের উষ্ণতার উপহার পেয়ে খুশি মনে ফিরেছে শীতার্তরা। এই দৃশ্য অনুভূতি কেবল সৌহার্দ্যের স্বার্থকতা। শীতবস্ত্র বিতরণকালে উপস্থিত ছিলেন মণিপুরী মানবকল্যাণ সংস্থা এর সদস্যবৃন্দ। এই শীতবস্ত্র বিতরণ কর্মসূচিতে যারা সহযোগী হয়ে ইভেন্ট সার্থক করেছেন তাদেরকে কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন শীতবস্ত্র ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট সমন্বয়ক।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Check Also

প্রাথমিক শিক্ষার্থীরা স্কুল ড্রেস, জুতা ও ব্যাগ কেনার টাকা পাবে ১৭ই মার্চ

কমলগঞ্জ বার্তা ডেস্ক ।। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর জন্ম শত বার্ষিকী উপলক্ষে ...