Breaking News
Home / জাতীয় / ‘যে কাটবে ধান সে পাবে ত্রাণ’,উপজেলা প্রশাসনের অভিনব উদ্যোগ

‘যে কাটবে ধান সে পাবে ত্রাণ’,উপজেলা প্রশাসনের অভিনব উদ্যোগ

বড়লেখা (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি ॥ চলতি মৌসুমে মৌলভীবাজারের বড়লেখায় বোরো ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। কিন্তু করনোভাইরাসের কারণে লকডাউন থাকায় অন্যান্য অঞ্চল থেকে শ্রমিকরা আসতে পারেননি। তাই ধানকাটা শ্রমিকের সংকটে পড়েছেন চাষিরা। এ অবস্থায় শ্রমিক সঙ্কট নিরসনে অভিনব উদ্যোগ নিয়েছে উপজেলা প্রশাসন। ‘যে কাটবে ধান সে পাবে ত্রাণ’ এই স্লোগানে করোনা পরিস্থিতে কর্মহীন বিভিন্ন পেশার লোকদের ধান কাটতে উদ্বুদ্ধ করা হচ্ছে। আজ সোমবার (২০ এপ্রিল) উপজেলার হাকালুকি হাওরাঞ্চলে ১০০ শ্রমিকের মাঝে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের বরাদ্ধ থেকে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেন মৌলভীবাজারের জেলা প্রশাসক নাজিয়া শিরীন।বড়লেখা উপজেলা কৃষি বিভাগ জানিয়েছে, এবার উপজেলার ১০ ইউনিয়নে বোরো ধানের আবাদ হয়েছে ৪ হাজার ৫৭৫ হেক্টর জমিতে। যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে প্রায় ১০০ হেক্টর বেশি। সবচেয়ে বেশি ধান আবাদ হয়েছে হাকালুকি হাওর পাড়ের তালিমপুর, সুজানগর ও বর্ণি ইউনিয়নে। অন্য ৭ ইউনিয়নেও কম-বেশি ধান আবাদ হয়েছে। ফলন ভালো হওয়ায় এবার ধান উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্র ধরা হয় ২৬ হাজার ২১৫ মেট্টিক টন।এদিকে করোনা মহামারিতে ধান কাটার শ্রমিক সংকট ও বৈরী আবহাওয়ায় পাকা ধান ঘরে তোলা নিয়ে চাষিরা যখন শঙ্কিত, ঠিক তখনই মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসক নাজিয়া শিরীন শ্রমিকদের ধান কাটায় অনুপ্রেরণা যোগাতে ত্রাণ নিয়ে পাশে দাঁড়িয়েছেন। সোমবার সকালে হাকালুকি হাওরপাড়ের বড়লেখা উপজেলার তালিমপুর ইউনিয়নের হাল্লা গ্রামের বোরো ক্ষেতে গিয়ে তিনি ১০০ ধান কাটা শ্রমিককে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেছেন। এ সময় বড়লেখা উপজেলা চেয়ারম্যান সোয়েব আহমদ, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শামীম আল ইমরান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার উদ্দিন, ওসি মো. ইয়াছিনুল হক,  উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান তাজ উদ্দিন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রাহেনা বেগম হাছনা, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা দেবল সরকার, প্রকল্প কর্মকর্তা উবায়দুল্লাহ কৃষকলীগ সভাপতি আব্দুল লতিফ প্রমুখ।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Check Also

কমলগঞ্জ উপজেলা পুষ্টি সমন্বয় কমিটির দ্বি-মাসিক সভা অনুষ্ঠিত- কমলগঞ্জ বার্তা

রাফি আহমেদ রিপন , কমলগঞ্জ ।। খাদ্যের কথা ভাবলে, পুষ্টির কথা ভাবুন’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে ...