Breaking News
Home / পাঠকেই লেখা / উপাধ্যক্ষ আব্দুস শহীদ ও অধ্যাপক রফিকুর রহমানের নিকট খোলা চিঠি

উপাধ্যক্ষ আব্দুস শহীদ ও অধ্যাপক রফিকুর রহমানের নিকট খোলা চিঠি

শাহীন আহমেদ॥
বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ সদস্য ও সরকারী প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি উপাধ্যক্ষ ড. মো. আব্দুস শহীদ স্যার ও কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগ সদস্য অধ্যাপক মো. রফিকুর রহমান স্যার মহোদয় প্রথমে আমার সালাম নিবেন। আমি কমলগঞ্জ উপজেলার আলীনগর ইউনিয়নের কামুদপুর গ্রামের একজন বাসিন্দা। তরুন প্রজন্ম হিসেবে একটি অখন্ড কমলগঞ্জ আমিসহ সবার দাবী। আপনাদের মতো রাজনৈতিক ভাবে প্রতিষ্ঠিত সম্মানীয় নেতাদের জন্মস্থান কমলগঞ্জ উপজেলাকে নিয়ে কেন খেলা হচ্ছে ? কি নেই কমলগঞ্জের ? এই কমলগঞ্জ আপনাদের পাশাপাশি জন্ম দিয়েছে ভাষা সৈনিক সাবেক সংসদ সদস্য মেধার রাজা মো. ইলিয়াস, সাবেক এমএনএ দানবীর আলহাজ্ব মো. কেরামত আলী, দানশীল প্রচারবিমুখ সমাজকর্মী পীর মকবুল আলী, সাবেক প্রধান বিচারপতি এস.কে সিনহা, বর্তমান আইজি প্রিজন ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইফতেখার উদ্দিনসহ আরও অনেক জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ভাবে পরিচিত, প্রতিষ্ঠিত গুনীজন। যাদের জন্মে ধন্য কমলগঞ্জ। তাহলে কেন কমলগঞ্জ উপজেলাকে হেয় করে দেখা হচ্ছে ? কেন কমলগঞ্জবাসীর মর্যাদায় বাব বার আঘাত করা হচ্ছে ? কমলগঞ্জকে ভাগ করা মানেই গুরুত্ব না দেয়া। যে সংসদীয় আসনের সাথে কমলগঞ্জকে সম্পৃক্ত রাখা হউক না কেন অবশ্যই অবিভক্ত রাখা দরকার। কেননা কুলাউড়া বা শ্রীমঙ্গল উপজেলা থেকে কমলগঞ্জ কোন ভাবেই পিছিয়ে নয়। তবে জনদাবী হচ্ছে কমলগঞ্জ শ্রীমঙ্গল এক থাকবে। শহীদ স্যার আপনি বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের সফল চিফ হুইপ ছিলেন। সংসদীয় রাজনীতিতে আপনি একজন মডেল। আপনার হাত ধরেই কমলগঞ্জে উন্নয়নের যাত্রা শুরু হয়েছে। আপনার জন্মস্থান কমলগঞ্জ হওয়ায় আপনার কর্ম কমলগঞ্জকে এনে দিয়েছে অনেক পরিচিতি। আপনি আমাদের গর্ব। অধ্যাপর রফিক স্যার মরহুম মোহাম্মদ ইলিয়াস সাহেব এর পর আপনিই কমলগঞ্জ উপজেলা থেকে কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের একমাত্র সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। আপনার রাজনৈতিক ত্যাগকে মূল্যায়ন করেই জননেত্রী শেখ হাসিনা আপনাকে কেন্দ্রীয় কমিটিতে স্থান দিয়েছেন। আপনার এই সফলতায় কমলগঞ্জবাসী খুশি। বর্তমানে আওয়ামী রাজনীতিতে আপনারা দুজন অবাদ বিচরন করছেন। নিশ্চয় আপনাদের যোগ্যতা আছে তাই আপনারা রাজনীতিতে সামনের কাতারে থেকে আমাদের নেতৃত্ব দিচ্ছেন। তাহলে কেন আপনাদের জন্মমাটি কমলগঞ্জ উপজেলাকে দু’ভাবে ভাগ করা হবে। এই ভাগ আপনারা আমরা সবার জন্য অপমানের, লজ্জ্বার।
২০০৮ সালের নির্বাচনের পূর্বে যখন কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর, আলীনগর, আদমপুর ও ইসলামপুর ইউনিয়নকে মৌলভীবাজার-২ অর্থাৎ কুলাউড়ার সাথে যোগ করা হয় সে সময় দেখেছি বিভক্তির বিরুদ্ধে আব্দুস শহীদ স্যার জনতার দাবীর সাথে এক হয়ে নির্বাচন কমিশনের শুনানীতে অংশ নিতে। গত ১৪ মার্চ কমিশন চার ইউনিয়নকে এক করে কমলগঞ্জ ও শ্রীমঙ্গল উপজেলা নিয়ে মৌলভীবাজার-৪ আসন পুনঃগঠন করেছে। কিন্তু সুবিধাবাদী মহলের প্ররোচনায় ইসলামপুর ইউনিয়নের মকাবিল গ্রামের হামিদুর রহমান কমিশনে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন চার ইউনিয়নকে কুলাউড়ার সাথে বহাল রাখতে। সেই অভিযোগ বিষয়ে আগামী ২৩ এপ্রিল কমিশনে শুনানী অনুষ্ঠিত হবে। ২০১৪ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে খসড়া তালিকায় চার ইউনিয়নকে পুনরায় মৌলভীবাজার-৪ আসনে সম্পৃক্ত করেছিলো নির্বাচন কমিশন। কিন্তু সম্পূর্নরুপে নিজেদের স্বার্থে সেসময় শ্রীমঙ্গল থেকে এক আওয়ামীলীগ নেতা ও কমলগঞ্জ থেকে এক জাতীয় পার্টি নেতা কমিশনের ওই সিদ্বান্তের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন। যে কারনে চুড়ান্ত তালিকায় আগের অবস্থাই বহাল থাকে। এবার আবার আশায় বুঁক বেধেছে চার ইউনিয়নের মানুষ। স্যার আপনারা জননেতা, জনগনের প্রতিনিধি, আপনারা মর্যাদাবান, সম্মানীত মানুষ। তাই আপনাদের সম্মানের কদর বিবেচনায় হলেও অবিভক্ত কমলগঞ্জ দরকার। ২০০৮ সালের মতো আবারও আমরা শহীদ স্যারকে চার ইউনিয়নকে এক রাখার পক্ষের সৈনিক হিসেবে দেখতে চাই। শোনা যাচ্ছে রফিক স্যার নাকি ইতিমধ্যে চার ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাহেবদের নিয়ে কমিশনে একত্রিত কমলগঞ্জের পক্ষে দরখাস্ত দিয়েছেন। ১৭ এপ্রিল আবার তিনি কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান, উপজেলা আওয়ামীলীগ যুগ্ম সম্পাদক মো. সিদ্দেক আলী, শমশেরনগর ইউপি চেয়ারম্যান আওয়ামীলীগ নেতা জুয়েল আহমেদ, আদমপুর ইউপি চেয়ারম্যান আবদাল হোসেন, আলীনগর ইউপি চেয়ারম্যান ফজলুল হক বাদশাকে সাথে নিয়ে নির্বাচন কমিশনে গিয়ে কমিশনের দায়িত্বশীল কর্মকর্তাদের সাথে দেখা করে চার ইউনিয়নকে বিভাজন না করার জন্য জোর লবিং ও চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। তবে রফিক স্যারকে মনে রাখতে হবে সরিষার মধ্যেও ভুত আছে।
আমার লিখায় কোন ভুল ভ্রান্তি বা বেয়াদবী হলে ছাত্র হিসেবে নিজ দলের কর্মী হিসেবে ক্ষমা করে দিবেন।
বিনীত
শাহীন আহমেদ
গ্রাম ঃ কামুদপুর
ইউনিয়ন ঃ আলীনগর
ডাক+উপজেলা ঃ কমলগঞ্জ
জেলা ঃ মৌলভীবাজার

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Check Also

নিখোঁজ মেয়ের সন্ধান পেতে মা-বাবার আবেদন দয়া করে শেয়ার করেন

বিজ্ঞপ্তি:: মৌলভীবাজারের রায়শ্রী মাজার সংলগ্ন থেকে এক বাচ্চা মেয়ে হারিয়ে গিয়েছে। নামঃ তিশা আক্তার, বয়সঃ ...