Breaking News
Home / সম্পাদকীয় / কাতার অবরোধের আজ এক বছর

কাতার অবরোধের আজ এক বছর

তুহিন আহমদ জহির॥

ইরানের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রাখা, আল কায়েদা, ইসলামিক স্টেট (আইএস), মুসলিম ব্রাদারহুডসহ জঙ্গি সংগঠনগুলোকে সমর্থন, অর্থায়ন ও লালন পালনের অভিযোগে ২০১৭ সালের ৫ জুন কাতারের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করে অবরোধ আরোপ করে সৌদি জোট। অবরোধ আরোপের আজ এক বছর পূর্ণ হলো।অবশ্য এর মধ্যে অবরোধ উঠিয়ে নেওয়ার জন্য একাধিকবার শর্ত দিয়েছে সৌদি জোট। তবে সৌদি জোটের সেসব দাবি মেনে নেয়নি দোহা। আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থার পক্ষ থেকেও অবরোধের নিন্দা জানানো হয়েছে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রসহ অন্যান্য দেশের পক্ষ থেকেও সঙ্কট কাটিয়ে ওঠার চেষ্টা করা হয়েছে। সৌদি জোট কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্নের পর কাতারকে আকাশসীমা থেকে শুরু করে সমুদ্রবন্দর ও স্থলবন্দরও ব্যবহার করতে দেয়নি।

নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে কাতারের নাগরিকদের বের করে দেওয়া হয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরাত, মিসর, বাহরাইন ও সৌদি আরব থেকে। এমনকি সৌদি আরব থেকে কাতারের উটও খেদিয়ে দেওয়া হয়। সৌদি থেকে বের করে দেওয়া উট নিয়ে কাতারেও ঢুকতে পারেননি তার মালিকরা। অনাহারে রোগে পড়ে সীমান্তে একের পর এক উটের করুণ মৃত্যু হয়েছে। আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে সে সবের খবর দেখে নিন্দা জানিয়েছে বিশ্ববাসী। কিন্তু বিশেষজ্ঞরা বলছেন, অবরোধের ফলে দোহার অর্থনীতির ওপর যে বিপজ্জনক ঝুঁকি সৃষ্টি হয়েছিল, তা শুধু এড়াতেই সক্ষম হয়নি দেশটি; বরং, দেশটির মানবাধিকার পরিস্থিতি ও ভূরাজনৈতিক অবস্থান আরো শক্তিশালী হয়েছে। কাতারের অর্থনীতিকে ভেঙে দেওয়ার যে পরিকল্পনা সৌদি জোটের ছিল, তা অনেকাংশেই ব্যর্থ হয়েছে। সৌদি আরবের একচ্ছত্র আধিপত্য মেনে নেননি কাতারের আমির। আল জাজিরা বন্ধ করার জন্য সৌদি জোটের দাবি কানেই তুলেনি দোহা। ইরানের সঙ্গেও সম্পর্ক বিচ্ছিন্ন করেনি।

অবরোধ শুরুর সময় কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়, সে দেশের বাসিন্দারা খাবার সঙ্কটের আতঙ্কে বেশি করে খাবার মজুদ করে রাখছেন। কিন্তু গত এক বছরে সে দেশে খাবারের সঙ্কটের খবর শোনা যায়নি।যদিও কাতার সঙ্কটের কৃতিত্ব দাবি করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তার পরেও সঙ্কট সমাধানে তার দেশের পক্ষ থেকেও চেষ্টা করতে দেখা গেছে। ওই সময় যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে এক হাজার দুইশ কোটি ডলারের যুদ্ধবিমান ক্রয়ের চুক্তিও করে কাতার। দুইটি মার্কিন রণতরী কাতারের সঙ্গে যৌথ সামরিক মহড়ায় অংশ নেয়। পরে এক হাজার দুইশ বিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে ফ্রান্সের কাছ থেকে যুদ্ধবিমান ও সাঁজোয়া যান ক্রয়ের ঘোষণা দেয় কাতার।সৌদি জোট কাতারকে নিজেদের আকাশসীমা ব্যবহার করতে না দেওয়ার জেরে বসে থাকেনি কাতার। ভিনদেশের সঙ্গে যৌথ মালিকানায় বিমান কিনে রীতিমতো কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। বরং সৌদি জোট কাতারকে ইরান বিরোধী করার চেষ্টা করতে গিয়ে বরং ইরানের ঘনিষ্ঠ হতে সহায়তা করেছে। সেটা সঙ্কট শুরুর পর থেকেই জানা গেছে। প্রকাশ্যে কাতারের পাশে থাকার ঘোষণা দিয়েছে দেশটি।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Check Also

পাত্রখোলা লেইক পরিযায়ী পাখিদের অভয়াশ্রম

কমলগঞ্জ বার্তা ডেস্ক, রিপোর্ট ॥ কমলগঞ্জ উপজেলার সীমান্তবর্তী মাধবপুর চা বাগানের ১৮নং সেকশনের পাত্রখোলা লেইক পরিযায়ী ...